• Bengali
  • English
  • Hindi

JAVA

জাভা স্প্যারো 

 

পরিচিতি: জাভা স্প্যারো পাখিকে জাভা রাইস বার্ড, জাভা স্টেম্পল বার্ড বা প্যাডি বার্ড ইত্যাদি নামেও ডাকা হয়। এদের নাম থেকেই বোঝা যায় যে, এদের আদি বাসস্থান ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপেযদিও ইন্দোনেশিয়ার বালি, বাউয়ান ইত্যাদি ্বীপেও এদের দেখা যায়পাসেরিফর্মেস বর্গের অন্তর্গত এস্ট্রিলডিডিয়া গোত্রভুক্ত প্রাণীএরা বড় প্রজাতির ফিঞ্চ আকারে ৫ থেকে সাড়ে ৬ ইঞ্চি লম্বা এবং ২৪-৩০ গ্রাম ওজনের হতে পারে

          এদের দেহের উপরিভাগ এবং বুকের রং ধূসর, পেটের অংশ গোলাপি, গাল সাদা, মাথার রং কালো এবং লাল মোটা ঠোঁট। এদের পালক অদ্ভুত সৃণ যেন মোমের স্তদেওয়াইন্দোনেশিয়ায় এই পাখি ঝাঁক বেঁধে ধান খেতে আসতো বলে এদের ফসলের শত্রু বলে গণ্য করা হয়এই পাখিগুলি কয়েক শতাব্দী ধরে চীন ও জাপানে পোষা হয়ে আসছে। লেজের ওপরদিকটা কালো হলেও তলার দিকটা সাদাবর্তমানে ফন এবং সাদা রঙের জাভা দেখতে পাওয়া যায়। যাদের চোখের রং কিন্তু লাল।

 স্ত্রী ও পুরুষ চেনার উপায়:  রঙ দেখে স্ত্রী - পুরুষের পার্থক্য বোঝার উপায় নেই। তবে কিন্তু পুরুষ পাখির বৈশিষ্ট্য মৃদু শিষের তালে দুলে দুলে নাচহাড়ের ফাঁক স্ত্রী পাখির ক্ষেত্রে একটু বেশি হয়মাথার আকারটিও স্ত্রী পাখিদের অপেক্ষাকৃত ছোট হয়। ঠোঁটের আকার দেখে মেয়েদের নর ও মাদা পার্থক্য করা যায়নর (পুরুষ) ও মাদা (স্ত্রী) পাখিকে পাশাপাশি ধরলে দেখা যায় পুরুষ পাখির ঠোঁট অনেক বেশি চওড়া স্ত্রী পাখির তুলনায়, বিশেষ করে ঠোঁটের গোড়ার দিকে। অপরদিকে স্ত্রী বা মাদা পাখির ঠোঁট অপেক্ষাকৃত সরু।

 

জাভা পাখির খাবার: এদের খাবার ধরন একটু আলাদা রকম হয়বড় কাঁকনি দানা খেলে ধান এদের সবচেয়ে প্রিয়। খোসা ছাড়িয়ে সুন্দর করে চাল বের করে খায় এরা। ধান ছাড়াও যব, সাদা প্রোসো মিলেট, কাঙনি দানা ও ব্ল্যাক সিড খেয়ে থাকেতবে বাসায় বাচ্চা থাকলে নরম খাবারের প্রয়োজন হয়। বিভিন্ন আকারের দানার মধ্যে এরা সাধারণত বড় দানাগুলি আগে বেছে খেয়ে নেয়। এর সঙ্গে প্রচুর ুঁই, পালং, কলমি, লেটুস ইত্যাদি নরম সবুজ পাতা দিতে হয়সঙ্গে বাচ্চা থাকলে নরম খাবার যেমন সেদ্ধ ডিমের কুসুম মাখানো বিস্কুটের গুঁড়ো, পিঁপড়ের ডিম ইত্যাদি দিতে হবে। এইসময় পোকার লার্ভা দিতে পারলে আরো ভালো হয়। অন্যান্য ফিঞ্চ জাতীয় পাখির মতো সারাবছর এদের খাঁচাতেও গ্রিট রাখতে হবে। খাঁচাতে একটি পাত্রে সমুদ্রের ফেনা দেওয়ার কথা কখনও যেন ভুলে না যাওয়া হয়। এদের শরীরে অন্যান্য পাখির তুলনায় অনেক বেশি পরিমাণে ক্যালশিয়াম প্রয়োজন হয়।

 

বাসা: এক জোড়া পাখির জন্য ৩ ফুট লম্বা × ১.৫ ফুট চওড়া × ১.৫ ফুট উচ্চতার বাসা যথেষ্ট। তবে প্রজননের জন্য একটি জোড়ার অবস্থান অধিক কার্যকরী হয়। বাসা হিসেবে ৬ ইঞ্চি × ৬ ইঞ্চি থেকে ৮ ইঞ্চি × ৮ ইঞ্চি আকারের হাঁড়ি, কলসি, চুবড়ি বা কাঠের বাক্স সবি চলতে পারে। সঙ্গে প্রচুর শুকনো পাতা, শুকনো ঘাস, কাটা কাগজ ইত্যাদি দিতে হবে। এরা এইসব উপকরণ দিয়ে ঢাকনাযুক্ত হাঁড়ি, কলসি বা বাক্সের মধ্যে প্রবেশ পথ থেকে সুড়ঙ্গের মতো পথ তৈরি করেএবং সুড়ঙ্গের শেষে গোলাকার অংশ রাখে সেখানে ডিম পাড়ার জন্য

 

 

প্রজনন: এদের প্রজননের জন্য প্রখর গ্রীষ্ম বা শীত ছাড়াও বছরের অন্য যেকোনো সময় উপযুক্ত হয়এরা উপযুক্ত পরিবেশ ও খাদ্য পেলে একবারে প্রতিদিন একটি করে ৪-৬ টি লম্বাটে সাদা ডিম পাড়ে এবং তিনটি ডিম পাড়ার পরে তা দিতে শুরু করেবদ্রিকা পাখির মতো এরা হাঁড়িতে ডিম পাড়েকিন্তু ডিম পাড়ার আগে ফিঞ্চ জাতীয় পাখির মতো এরা বাসা বানায়ঘাসের টুকরো বা নারকেলের ছোবড়ার টুকরো খাঁচায় দিলে, তা দিয়ে এরা নিজেরাই হাঁড়ির মধ্যে সুন্দর বাসা বানায়বাসা বানানোর পর মাদা পাখি ৫-৭ টা ডিম পাড়ে। ১৪ - ১৬ দিন পর বাচ্চা হাঁড়ি থেকে বেরিয়ে আসে। বাচ্চা হাঁড়ি থেকে বেরোনোর মোটামুটি ১২ - ১৫ দিনের মধ্যে নিজেরা খেতে শিখে যায়।

        জাভা স্প্যারোকে ৮ - ৯ বছর বেঁচে থাকতে দেখা যায় এবং প্রায় ৫ - ৬ বছর পর্যন্ত প্রজনন করতে দেখা গেছে। এরা ৫ বছর বয়স পর্যন্ত পূর্ণ প্রজনন ক্ষমতার অধিকারী হয়ে থাকে। 

JAVA

Java sparrow 

 

Introduction: Java sparrow is also known as Java Rice Bird, Java Stample Bird or Paddy Bird etc. Their names indicate that they originally lived on the Indonesian island of Java. However, they are also found on the islands of Bali, Bawan, etc. in Indonesia. Animals belonging to the genus Astrilididae in the class Passeriformes. These are large species of finches. It can be 5 - 6 1/2 inches long and weigh about 24-30 grams.

         They have gray body surface and chest, pink abdomen, white cheeks, black head and thick red beaks. Their feathers are strangely smooth, like a wax coating. In Indonesia, these birds are considered as enemies of the crop as they come in flock to eat rice. These birds have been domesticated in China and Japan for centuries. The top of the tail is black but the bottom is white. Currently Fon and White Java are also available. But their eye color is red.   

Identifying characters of male and female: There is no way to understand the difference between male and female best on their body color. However, the male bird is characterized by a gentle fluttering dance. The bone gap is a little higher in the case of female birds. The size of the head is also relatively small in female birds. Male and female birds can be distinguished by the size of their beaks. When male and female birds are kept side by side, it is seen that the beak of the male bird is much wider than that of the female bird, especially at the base of the beak. On the other hand, the beak of the female birds are relatively narrow.

 

 

 

Food of the Java Bird: Their food style is a little different.  When they eat big kankani grains, paddy (rice) is their favorite. They peel the husk and eat the rice nicely. In addition to rice; barley, white proso millet, kangni grains and black seeds are also eaten. If there are chicks in the cage, then they need soft food. Among the grains of different sizes, they usually choose the larger grains first. Along with this you have to give a lot of soft green leaves like Puni (Malabar spinach), Spinach, Kalmi (Water spinach), Lettuce etc. If they have chicks in the cage then you have to provide them soft food such as boiled egg yolk smeared biscuit powder, ant eggs, etc. should be given. It is better to give insect larvae at this time. Like other finches, they need to be kept in cages all year round. Never forget to put sea foam in a container inside the cage. Their body needs much more calcium than other birds.

 

 

 

Nesting: For a single pair of birds 3 feet long × 1.5 feet wide × 1.5 feet high nest is enough. However a pair in a single cage is more effective for reproduction.  Pots, pitchers, wicker basket or wooden boxes of 6 inches × 6 inches to 8 inches × 8 inches can be used as nests. With lots of dry leaves, dried grass, cut papers etc. should be given. They use these materials to create tunnel-like passages from the entrance inside the covered pots, pitchers or boxes. And put a round part at the end of the tunnel to lay eggs there.

 

 

Reproduction: Not only in summer or winter, they are suitable for breeding at any other time of the year. When they find suitable environment and food, they lay 4-6 long white eggs one at a time and after laying three eggs they start to lay on it. They lay their eggs in pots like the Badrika birds. But before laying eggs, they build their nests like finches. If you give a piece of grass or a piece of coconut husk in the cage, they make a beautiful nest in the pot themselves with it. After building the nest, the female lays 5-6 eggs. After 14-18 days the baby comes out of the pot. The baby learns to eat on it's own within 12-15 days of coming out of the pot.

         Java sparrows are found to live for 7-9 years and breed for about 5-6 years. They are fully fertile up to 5 years of age.

 

JAVA